Category: নামাজ শিক্ষা

জানাজার নামাজের নিয়ম ও নিয়্যাতসমূহ

জানাজার নামাজের নিয়্যাত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উয়াদ্দিয়া আরবা’য়া তাকবীরাতি ছালাতিল জানাযাতি ফারদুল কিফায়াতি আছছানাউ লিল্লাহি তাআ’লা ওয়াছ সালাতু আলান্নাবীয়্যি ওয়াদ দুয়াউ লিহাযাল মাইয়িতি এক্তাদাইতু বিহা-যাল ইমাম মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। অনুবাদঃ আমি আল্লাহর উদ্দেশ্যে জানাযার ফরযে কেফায়ার নামাজ চার তাকবীর সহিত কেবলামুখী হয়ে এই ইমামের পিছনে আদায় করছি। এই ভাবে নিয়তের পর ১ম তাকবীর বলবে, তারপর ছানা অথবা সূরা ফাতিহা পড়বে : سُبْحَانَكَ اَللَّهُمَّ وَبِحَمْدِكَ وَتَبَارَكَ اسْمُكَ وَتَعَالَى جَدُّكَ وَجَلَّ ثَنَاءُكَ وَلاَ اِلَهَ غَيْرُكَ উচ্চারণ : সুবহা-নাকা আল্লাহুম্মা ওয়া বিহামদিকা, ওয়া তাবারা কাসমুকা ওয়া তাআলা জাদ্দুকা, ওয়া জাল্লা ছানাউকা ওয়া লা-ইলাহা গাইরুক। অনুবাদ : হে আল্লাহ আমরা তোমার পবিত্রতার গুণগান করিতেছি। তোমার নাম মঙ্গলময় এবং তোমার সম্মান ও মর্যাদা অতি শ্রেষ্ঠ, তোমার জন্য প্রশংসা, তুমি ব্যতীত আর কেহই উপাস্য নাই। ছানার পর ২য় তাকবীর বলবে, তারপর দরুদে ইব্রাহীম পড়বে। اَللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّدٍ وَعَلَى اَلِ مُحَمَّدٍ كَمَا صَلَّيْتَ عَلَى اِبْرَاهِيْمَ وَعَلَى اَلِ اِبْرَ اهِيْمَ اِنَّكَ حَمِيْدٌ مَّجِيْدٌ – اَللَّهُمَّ بَارِكْ عَلَى مُحَمَّدٍ وَعَلَى اَلِ مُحَمَّدٍ كَمَا بَارَكْتَ عَلَى اِبْرَا هِيْمَ وَعَلَى اَلِ اِبْرَا هِيْمَ اِنَّكَ حَمِيْدٌمَّجِيْدٌ উচ্চারন : আল্লাহুম্মা সাল্লিআলা মুহাম্মাদিও ওয়া আলা আ-লি মুহাম্মাদ, কামা- সাল্লাইতা আলা- ইব্রাহীমা ওয়া আলা- আ-লি ইব্রাহীম, ইন্নাকা হামী-দুম্মাজী-দ। আল্লাহুম্মা বা-রিক আলা মুহাম্মাদিও ওয়া আলা আলি মুহাম্মাদ, কামা বা-রাকতা আলা- ইব্রাহীমা ওয়া আলা- আ-লি ইব্রাহীম, ইন্নাকা হামী-দুম্মাজী-দ। অনুবাদ : যে আল্লাহ! মুহাম্মদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এবং তাঁহার বংশধরগণের উপর ঐরূপ রহমত অবতীর্ণ কর যেইরূপ রহমত হযরত ইব্রাহিম (আঃ) এবং তাঁহার...

Read More

ঈদের নামাজের নিয়্যতসমূহ

ঈদুল ফিতরের নামাযের নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকায়াতাই ছালাতিল ঈদিল ফিতরি মাআ’ ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তা’য়ালা এক্তাদাইতু বিহা-যাল ইমাম মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। ঈদুল আযহার নামাযের নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকায়াতাই ছালাতিল ঈদিল আযহা মাআ’ ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তা’য়ালা এক্তাদাইতু বিহা-যাল ইমাম মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার।   Install QR-Code নামাজ শিক্ষা ও প্রয়োজনীয় সূরা - Namaj Shikkha Developer: IT Solution Price:...

Read More

জুম’আর নামাজের নিয়্যতসমূহ

দুই রাকাআত তাহিয়্যাতুল অযুর নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকায়াতাই ছালাতিল তাহিয়্যাতুল অযুই সুন্নাতু রাসুলল্লাহি তা’য়ালা মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। দুই রাকাআত দুখুলুল মসজিদ নামাজের নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকায়াতাই ছালাতিল দুখুলুল মসজিদি সুন্নাতু রাসুলল্লাহি তা’য়ালা মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। চার রাকাআত কাবলাল জুমআর নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা আরবায়া রাকায়াতি ছালাতিল কাবলাল জুমআতি সুন্নাতু রাসুলল্লাহি তা’য়ালা মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। জুমআর দু’রাকাআত ফরয নামাযের নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতু আন উসকিতা আন যিম্মাতি ফারদুয যুহরি বিআদায়ী রাকাতি সালাতিল জুমায়াতি ফারযুল্লাহি তা’আলা এক্তাদাইতু বিহা-যাল ইমাম মুতাওয়াজ্জিহান ইলাজিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার। চার রাকাআত বা’দাল জুমআর নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা আরবায়া রাকায়াতি ছালাতিল বা’দাল জুমআতি সুন্নাতু রাসুলল্লাহি তা’য়ালা মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। দু’রাকাআত সুন্নাতুল ওয়াক্তিয়া নামাযের নিয়ত উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকায়াতাই ছালাতিল ওয়াক্তি সুন্নাতু রাসুলল্লাহি তা’য়ালা মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার।   Install QR-Code নামাজ শিক্ষা ও প্রয়োজনীয় সূরা - Namaj Shikkha Developer: IT Solution Price:...

Read More

নামাজের ওয়াক্ত ও রাকাতসমূহ

সহী হাদিছ অনুসারে নামাজের ওয়াক্ত ১/ ফজর-পাখি ডাকা ভোরে কিছুটা আঁধার থাকতেই অর্থাৎ সকালের আভা ছড়িয়ে পড়ার আগেই এই নামাজ আদায় করে নেয়া ভাল। তবে ক্ষেত্র বিশেষে প্রয়োজনে সূর্যের উদীয়মান প্রথম অংশ পূর্ব দিগন্তরেখা অতিক্রম করার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত নামাজ আদায় করে নেয়া যেতে পারে। সূর্যোদয়ের সময় নামাজ পড়া নিষেধ। ফজরের নামাজের রাকাত সংখ্যাঃ ফজরের নামাজ মোট চার রাকাত। প্রথমে দুই রাকাত সুন্নতে মুয়াক্কাদা(আবশ্যক) এবং অতঃপর দুই রাকাত ফরজ। ২/ যোহর-মধ্যাহ্নে সূর্য তার সর্বোচ্চ স্থান থেকে কিছুটা হেলে পড়ার পর পরই নামাজ আদায় করে নেয়া ভাল। তবে সূর্যকিরণ যখন বেশ উত্তপ্ত থাকে, বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে একটু দেরিতে অর্থাৎ সূর্যের তেজ কিছুটা কমে এলে নামাজ আদায় করে নেয়ার অবকাশ রয়েছে। ক্ষেত্র বিশেষে আছরের সময় হওয়া পর্যন্ত নামাজ আদায় করে নেয়া যেতে পারে। যোহরের নামাজের রাকাত সংখ্যাঃ যোহরের নামাজ মোট বারো রাকাত। প্রথমে চার রাকাত সুন্নত(আবশ্যক), তারপর চার রাকাত ফরজ, তারপর দুই রাকাত সুন্নত(আবশ্যক) এবং সব শেষে দুই রাকাত নফল। যদি কোন কারণে ফরজের পূর্বে চার রাকাত সুন্নত আদায় করতে না পারে, তাহলে ফরজের পরে আদায় করে নিবে। ৩/ আছর-যোহরের নামাজের পর অর্থাৎ মধ্যাহ্ন পেরিয়ে সূর্য যখন পশ্চিম দিগন্ত রেখা থেকে বেশ কিছুটা উপরে অবস্থান করে এবং সূর্যের উজ্জ্বলতা/তেজ বিরাজমান থাকে, সেই সময় থেকে সূর্যের সোনালী/তামাটে বর্ণ মিটে গিয়ে রক্তিম বর্ণ ধারণ করার পূর্বেই নামাজ আদায় করে নেয়া ভাল। সে সময় সূর্য দিগন্ত রেখা থেকে এতটা উপরে থাকা উচিত যে, জানালা গলে ঘরের মাঝে ছড়িয়ে পড়া সূর্যকিরণ মিটে গিয়ে যেন ছায়া...

Read More

পাঁচ কালিমা | 5 kalima

কালিমা-ই তায়্যিবা আরবীঃ لَا إِلٰهَ إِلَّا الله مُحَمَّدٌ رَسُولُ الله উচ্চারনঃ লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ। অর্থঃ আল্লাহ ছাড়া কোন মা’বুদ নাই, মুহাম্মাদ (স.) আল্লাহর রাসুল। কালিমা-ই শাহাদাত আরবীঃ اَشْهَدُ اَنْ لَّا اِلَهَ اِلَّا اللهُ وَحْدَهُ لَاشَريْكَ لَهُ وَاَشْهَدُ اَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُوْلُه উচ্চারনঃ আশহাদু আল লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা-শারীকালাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান ‘আবদুহু ওয়া রাসুলুহু। অর্থঃ মুহাম্মাদ (স.) আল্লাহর রাসুল। আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে , আল্লাহ ছাড়া কোন মা’বুদ নাই, তিনি এক- তাঁর কোন অংশীদার নাই। আমি আরও সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, মুহাম্মদ (স.) আল্লাহর বান্দা এবং তাঁর রাসুল। কালিমা-ই তাওহীদ আরবীঃ لَا اِلَهَ اِلَّا اَنْتَ وَاحِدَ لَّاثَانِىَ لَكَ مُحَمَّدُرَّ سُوْلُ اللهِ اِمَامُ الْمُتَّقِيْنَ رَسُوْ لُرَبِّ الْعَلَمِيْنَ উচ্চারনঃ লা-ইলাহা ইল্লা আনতা ওয়াহিদাল্লা ছানীয়ালাকা মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ ইমামুল মুত্তাকীনা রাসুলু রাব্বিল আলামীন। অর্থঃ তুমি (আল্লাহ) ছাড়া অন্য কোন উপাস্য নেই। তুমি এক, তোমার দ্বিতীয় কেউ নেই।আল্লাহর রাসুল মুহাম্মাদ(সা.) আল্লাহভীরুদের নেতা ও বিশ্বপ্রতিপালকের রাসূল। কালিমা-ই তামজীদ আরবীঃ لاَ إِلَهَ إِلاَّ أَنْتَ نُوْراً يَهْدِيْ اللهُ لِنُوْرِهِ مَنْ يَشَاءُ مُحَمَّدٌ رَسُوْلُ اللهِ إِمَامُ الْمُرْسَلِيْنَ خَاتَمُ النَّبِيِّيْنَ উচ্চারনঃ লা ইলাহা ইল্লা আনতা নূ-রাই ইহায়দিয়াল্লাহু লিনূরিহী মাই-ইয়াশাউ মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহি ইমামুল মুরসালীনা ওয়া খাতামান নাবিয়্যীন। অর্থঃ তুমি (আল্লাহ) ছাড়া অন্য কোন উপাস্য নেই। তুমি জ্যোতির্ময়, যাকে ইচ্ছা হয় তাকেই তোমার নূর দ্বারা পথ প্রদর্শণ কর। মুহাম্মাদ (সা.) আল্লাহর রাসুল, রাসুলগণের নেতা এবং সর্বশেষ নবী। কালিমা-ই রদ্দে কুফর আরবীঃاَللَّهُمَّ اِنِّىْ اَعُوْذُبِكَ مِنْ اَنْ اُشْرِكَ بِكَ شَيْئً وَاَنَا اعَلَمُ بِهِ وَاَسْتَغْفِرُكَ لِمَا اعَلَمُ بِهِ وَمَا لاَاعَلَمُ بِهِ تُبْتُ عَنْهُ...

Read More

Categories

Archives

Follow US